টাঙ্গাইলের সেই বাসের সুপারভাইজারের ৪ দিনের রিমান্ড

টাঙ্গাইলে বাসে মানসিক প্রতিবন্ধী নারীকে ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতারকৃত আসামি বাসের সুপারভাইজার এরশাদকে ৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত।
মঙ্গলবার দুপুর ১২ টায় সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আশিকুজ্জামানের আদালতে এই রিমান্ড শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।
রিমান্ডের পক্ষে শুনানি করেন কোর্ট পরিদর্শক আনোয়ারুল ইসলাম। তাকে সহায়তা করেন মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার টাঙ্গাইল জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আতাউর রহমান আজাদ।
গত সোমবার দুপুরে গ্রেফতারকৃত এরশাদকে ৫ দিনের রিমান্ডের আবেদন করে আদালতে প্রেরণ করে। পরে আদালত আজ মঙ্গলবার রিমান্ডের শুনানির দিন ধার্য রাখে।
গত শুক্রবার গ্রেফতারকৃত বাসের হেলপার আদালতে ১৬৪ ধারা স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দিতে বলেছেন বাস চালক আলম খন্দকার বুদ্ধি প্রতিবন্ধী নারীকে বাসের ভিতরে ধর্ষণ করে এবং সেই সময় সুপারভাইজার এরশাদ এই ধর্ষণ কাজে জড়িত থাকার কথা বলে।
এদিকে বাসের চালক পলাতক রয়েছে। তাকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশি তৎপরতা অব্যাহত হয়েছে।
উলে­খ্য, বৃহস্পতিবার (৩০ আগস্ট) রাত ১২টার দিকে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব প্রান্তে টহলরত পুলিশ দল ওই এলাকার নৈশপ্রহরী শাহ আলমের মাধ্যমে জানতে পারে যে, বাস স্ট্যান্ডে একটি বাসের ভিতর নারীর কান্না শোনা যাচ্ছে। এ খবর পেয়ে ওই টহলদল বাসটিতে গিয়ে প্রতিবন্ধী এক নারীকে উদ্ধার করে। এসময় ওই নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে পুলিশকে জানায়। পরে পুলিশ ওই বাসের হেলপার নাজমুলকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
পরে এদিকে এই ভিকটিমের পরিচয় পাওয়া গেছে। ভিকটিমের বাড়ি কুষ্টিয়া জেলার মিরপুর উপজেলার কুড়িপুর গ্রামে। ঈদের আগে বড় বোনের ঢাকার বাড়িতে বেড়াতে যায়। ঈদের পর দিন ২৩ আগস্ট নিখোঁজ হয়। পরে তার বড় বোন সবুজবাগ থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন।

এদিকে টাঙ্গাইল কারাগারে নিরাপদ হেফাজতে থাকা ভিকটিমকে সোমবার তার ভাইয়ের আবেদনের প্রেক্ষিতে একই আদালত ভাইয়ের জিম্বায় প্রদানের আদেশ দেন। পরে তার ভাই হেলাল বিকালে তার বোনকে নিজ হেফাজতে নিয়ে চলে যায়।

অনুসন্ধান

পুরাতন খবর

এই বিষয়ের আরো খবর

© All rights reserved © 2017 ThemesBazar.Com

Desing & Developed BY লিমন কবির