ব্যারিস্টার মইনুলের বিরুদ্ধে আরও চার মামলা

সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে ‘চরিত্রহীন’ বলায় ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে দায়ের করা হয়েছে আরও চারটি মামলা। এর মধ্যে রাজধানীতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা একটি মামলা রয়েছে।

সমকাল প্রতিবেদক জানান, বুধবার ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালতে আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া উপ-কমিটির সদস্য সুমনা আক্তার লিলি বাদী হয়ে ব্যারিস্টার মইনুলের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলাটি দায়ের করেন। তিনি সাংবাদিকদের জানান, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৫ (ক) ও ২৯ ধারায় মামলাটি করা হয়েছে। ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আস সামশ জগলুল হোসেন বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে মামলাটি এজাহার হিসেবে রেকর্ড করতে গুলশান থানার ওসিকে নির্দেশ দিয়েছেন। আদালতে বাদীর পক্ষে শুনানি করেন ঢাকা বারের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট কাজী মো. নজিবুল্ল্যাহ হিরু ও রাশিদা চৌধুরী নিলু।

নড়াইলে মানহানি মামলা: নড়াইল প্রতিনিধি জানান, নড়াইলের আমলি আদালতে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা হয়েছে। বুধবার মামলাটি করেন ‘নড়াইল বিডিখবর’-এর নিজস্ব প্রতিনিধি মিলি খানম। মামলাটি আমলে নিয়ে সদর আমলি আদালতের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জাহিদুল আজাদ আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।

রাজবাড়ীতে গ্রেফতারি পরোয়ানা: রাজবাড়ী প্রতিনিধি জানান, রাজবাড়ীতে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে মানহানি মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত।

রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার বোয়ালিয়া ইউনিয়ন মহিলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ও সাবেক ইউপি সদস্য সালেহা বেগম বাদী হয়ে বুধবার এক কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দাবিতে রাজবাড়ীর ২ নং আমলি আদালতে এ মামলা করেন। আদালতের বিচারক লাবনী আক্তার মামলাটি আমলে নিয়ে ব্যারিস্টার মইনুলের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।

ময়মনসিংহে আরও একটি মানহানি মামলা: ময়মনসিংহ ব্যুরো জানায়, ময়মনসিংহের অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ১ নং আমলি আদালতে ব্যারিস্টার মইনুলের বিরুদ্ধে আরও একটি মানহানির মামলা দায়ের করা হয়েছে। আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রাশেদা তাহমিনা প্রীতি বুধবার মামলাটি করেন। বিচারক অভিযোগ আমলে নিয়ে বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

এর আগে একই অভিযোগে মঙ্গলবার ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে ময়মনসিংহে একটি মামলা হয়েছে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে। কক্সবাজার ও চট্টগ্রামের দু’টি মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়েছে। মাগুরার একটি মামলায় বাদী ৫০০ কোটি টাকার মানহানি হয়েছে বলে দাবি করেছেন।

আর সোমবার রংপুর, কুমিল্লা, ভোলা, কুড়িগ্রাম ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মামলা হয়। ওই দিনই ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় করা মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

তারও আগে জামালপুর ও ঢাকায় মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে দু’টি মামলা দায়ের করা হয়। ঢাকার মামলার বাদী সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টি নিজেই। এই দুই মামলায়ও গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়। তবে মামলা দু’টিতে আগাম জামিন নিয়েছিলেন ব্যারিস্টার মইনুল। পরে জামিন স্থগিত চেয়ে আদালতে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ।

উল্লেখ্য, গত ১৬ অক্টোবর একাত্তর টেলিভিশনের টক শো ‘একাত্তরের জার্নাল’ এ ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টি প্রশ্ন করেন, ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে আপনি যে হিসেবে উপস্থিত থাকেন- আপনি বলেছেন আপনি নাগরিক হিসেবে উপস্থিত থাকেন। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই বলছেন, আপনি জামায়াতের প্রতিনিধি হয়ে সেখানে উপস্থিত থাকেন।’

মাসুদা ভাট্টির এই প্রশ্নে রেগে গিয়ে মইনুল হোসেন বলেন, ‘আপনার দুঃসাহসের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ দিচ্ছি। কিন্তু আপনি চরিত্রহীন বলে আমি মনে করতে চাই। আমার সঙ্গে জামায়াতের কানেকশনের কোনো প্রশ্নই নেই। আপনি যে প্রশ্ন করেছেন তা আমার জন্য অত্যন্ত বিব্রতকর।

অনুসন্ধান

পুরাতন খবর

এই বিষয়ের আরো খবর

© All rights reserved © 2017 ThemesBazar.Com

Desing & Developed BY লিমন কবির