‘ওরা গাড়িতে উঠতে দেয়নি, চলে গেল আমার মামণি’

পরিবহন শ্রমিকদের ধর্মঘট চলাকালে অ্যাম্বুলেন্স আটকে রাখায় মৌলভীবাজারের বড়লেখায় সাত দিন বয়সী এক কন্যাশিশু মারা গেছে। নির্মম ওই ঘটনা সারাদেশের মানুষের মনে নাড়া দিয়েছে। অবশ্য তার আগের দিনই শ্রমিকদের বাধায় গাড়ি নিয়ে হাসপাতালে যেতে না পারায় মারা যায় ১১ মাস বয়সী আরেক শিশু। প্রত্যন্ত গ্রামের হতদরিদ্র পরিবারের শিশুটির এই মর্মান্তিক মৃত্যুর খবর গণমাধ্যম কর্মীরা জানতে পেরেছেন মঙ্গলবার।

যোগাযোগ করা হলে কাঁদতে কাঁদতে শিশুটির মা বলেন, ‘অসুস্থ মেয়েকে নিয়ে ওরা গাড়িতেই উঠতে দেয়নি। চিকিৎসা না পেয়ে চলে গেল আমার মামণি।’

বড়লেখার সীমান্তবর্তী উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়নের ভট্টশ্রী গ্রামে গত রোববার সন্ধ্যায় এই হৃদয়বিদারক ঘটনা ঘটে। একই গ্রামের মৃত ছালেক আহমদের মেয়ে সে। এমন তথ্য জানতে পেরে মঙ্গলবার উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান সেলিম আহমদ খানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। পরে শিশুটির পরিবারের সঙ্গে কথা বলে প্রকৃত ঘটনা জানা যায়।

স্থানীয় লোকজন ও শিশুর পরিবারের সঙ্গে কথা বলে গেছে, শিশুকন্যা সুকরিয়া নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত ছিল। তার মা হামিদা বেগম তাকে গত রোববার দুপুরে শাহবাজপুর বাজারে এক পল্লিচিকিৎসকের কাছে নিয়ে যান।

সুকরিয়ার মা হামিদা বলেন, ‘বাড়ি থেকে বেরিয়ে যানবাহন না পেয়ে দুই কিলোমিটার হেঁটে অসুস্থ মেয়েকে নিয়ে শাহবাজপুর বাজারে যাই। স্থানীয় এক চিকিৎসক মেয়েকে দেখে তাড়াতাড়ি হাসপাতালে নেওয়ার পরামর্শ দেন। অটোরিকশাতে উঠতে গেলে শ্রমিকরা বাধা দেয়। অনেক অনুনয়-বিনয় করলেও তারা গাড়িতে উঠতে দিল না। বাধ্য হয়ে মেয়েকে নিয়ে বাড়ি ফিরে আসি। সন্ধ্যায় আমার মামণি আমাকে ছেড়ে চলে যায়।’

এ ব্যাপারে উত্তর শাহবাজপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মোহাম্মাদ মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘এ রকম কোনো খবর পাইনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

অনুসন্ধান

পুরাতন খবর

এই বিষয়ের আরো খবর

© All rights reserved © 2017 ThemesBazar.Com

Desing & Developed BY লিমন কবির