ইসি তফসিল পেছালে আপত্তি নেই আ’লীগের

নির্বাচন কমিশন তফসিল ঘোষণার দিনক্ষণ পেছাতে চাইলে কোনো আপত্তি করবে না আওয়ামী লীগ। একই সঙ্গে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে আবারও সংলাপ করবে সরকারি দল। তবে দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের গতকাল শনিবার আগামী জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার সময় ঘনিয়ে আসায় ৭ নভেম্বরের পর আর কোনো সংলাপ হবে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন।

গতকাল ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার দিনক্ষণ ঘোষণা না করার আহ্বান জানিয়ে নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী গতকাল রাতে সমকালকে জানিয়েছেন, নির্বাচন কমিশন স্বাধীন। আওয়ামী লীগ তাদের কাজে কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ করবে না। নির্বাচন কমিশনের চিন্তাভাবনাকে প্রভাবিত করার অভ্যাস আওয়ামী লীগের নেই।

আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ড. আবদুর রাজ্জাক বলেছেন, নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের। সেইসঙ্গে তফসিল ঘোষণার দিনক্ষণ পেছানোর বিষয়েও নির্বাচন কমিশন সিদ্ধান্ত নেবে। তিনি আরও বলেন, আবারও সংলাপে কোনো আপত্তি নেই আওয়ামী লীগের। লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড এবং প্রভাবমুক্ত প্রশাসনিক ব্যবস্থা আরও নিশ্চিত করার জন্য আবারও সংলাপ হতেই পারে। তবে সহায়ক সরকার কিংবা সংসদ ভাঙা নিয়ে সংলাপের কোনো সুযোগ নেই।

শনিবার জেলহত্যা দিবসের আলোচনা সভায় ওবায়দুল কাদের বলেন, সব মিলিয়ে ৮৫টির মতো রাজনৈতিক দল সংলাপ চেয়েছে। এ পর্যন্ত আমরা ঐক্যফ্রন্ট ও যুক্তফ্রন্টের সঙ্গে সংলাপ করেছি। ৪ নভেম্বর ১৪ দল ও ৫ নভেম্বর জাতীয় পার্টির সঙ্গে সংলাপ হবে। এর বাইরে আরও অন্তত ৩১টি আবেদন পেয়েছি। ইসলামী দল আর সিপিবির জোটের সঙ্গে বসব। তবে দীর্ঘ সময় সংলাপ চালিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়। কারণ, নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা এর মধ্যে হয়ে যাবে।

সংলাপে বিএনপির অসন্তুষ্টি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সবাই তো আর সন্তুষ্ট হবে না। বিএনপি সন্তুষ্ট হবে কী হবে না, সে বিষয়ে আমরা দলনেতার (ড. কামাল হোসেন) কথা বিবেচনায় নিচ্ছি। তিনি বলেছেন, ‘ভালো আলোচনা হয়েছে।’ আমরা সেখানেই আপাতত থাকি।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সব দলের অংশগ্রহণে নিরপেক্ষ নির্বাচন চায়, যেখানে নিবন্ধিত সব রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণও প্রত্যাশা করছে। এর কোনো ব্যত্যয় দেশের জন্য শুভ নয়। তাই আমরা সতর্ক আছি। কারণ কারও মনে যদি কোনো মতলব থাকে, কেউ যদি সংলাপে লোকদেখানো অংশ নিয়ে ভেতরে ভেতরে নাশকতার ছক আঁকেন, যদি সহিংসতার দিকে পা বাড়ান- সেদিকেও সতর্ক আছি। কেউ সহিংসতার পথ বেছে নিলে সমুচিত জবাব দেওয়া হবে।

সেতুমন্ত্রী বলেন, আমরা সংলাপ করছি, নির্বাচনের প্রস্তুতিও নিচ্ছি। সঙ্গে সঙ্গে কেউ যদি নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র করে সেটার সমুচিত জবাবের প্রস্তুতিও নিচ্ছি।

অনুসন্ধান

পুরাতন খবর

এই বিষয়ের আরো খবর

© All rights reserved © 2017 ThemesBazar.Com

Desing & Developed BY লিমন কবির